বুধবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

আশা দেখাচ্ছে আরেকটি টিকা

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

করোনার টিকাদান কর্মসূচির মহড়া শুরু করেছে ভারত। এ পর্যন্ত চার রাজ্যে টিকা কর্মসূচির কাঠামোগত সুবিধা পর্যালোচনা করা হয়েছে। গত দু’দিন ধরে মাঠপর্যায়ের সুযোগ-সুবিধা দেখার মধ্য দিয়ে ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। এদিকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আশা দেখাচ্ছে আরও একটি টিকা। যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের এই টিকা ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ে নিজ দেশ ও প্রতিবেশী মেক্সিকোতে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। খবর এএফপি, এনডিটিভি ও রয়টার্সের।

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে সর্বসাধারণকে করোনার টিকা দেওয়া শুরু হবে। প্রথম ধাপে কারা টিকা পাবেন, সে তালিকাও প্রস্তুত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের তৈরি টিকাও প্রস্তুত। গতকাল ভারতের কয়েকজন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ জানান, দু-চারদিনের মধ্যেই অক্সফোর্ডের টিকার চূড়ান্ত অনুমোদন দেবে যুক্তরাজ্য। অনুমোদন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভারতে এর প্রয়োগ শুরু হবে। এ ছাড়া বায়োএনটেক ও ফাইজারের কাছে তাদের টিকা প্রয়োগের অনুমতি চেয়েছে ভারত। এর আগে গত সোমবার ও গতকাল মঙ্গলবার অল্প্রব্দপ্রদেশ, গুজরাট, আসাম ও পাঞ্জাবে টিকাদান কর্মসূচির মহড়া চালালো দেশটি।

ভারতে মহড়ার এ পর্যায়ে কাউকে টিকা দেওয়া হয়নি, বাকি সব কিছু হাতেনাতে দেখা হচ্ছে। টিকা দানকারীদের প্রস্তুতি, টিকা রাখার শীতাতপ ব্যবস্থা, টিকা পরিবহন, টিকা গ্রহণকারীদের তালিকা- সবই দেখে নেওয়া হয়েছে। পুরো প্রস্তুতির মধ্যে কোনো ফাঁক আছে কিনা, সেটা খতিয়ে দেখাই মহড়ার উদ্দেশ্য।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ফাইজার-বায়োএনটেক ও মডার্নার টিকা অনুমোদনের পর তা প্রয়োগ করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের টিকার জরুরি অনুমোদন চেয়ে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও জনসন অ্যান্ড জনসন শিগগির আবেদন করতে পারে। এ অবস্থায় আরও একটি সুখর দিতে যাচ্ছে নোভাভ্যাক্স। যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোতে তাদের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হয়েছে। গত সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ (এনআইএইচ) জানায়, নোভাভ্যাক্সের টিকার নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা নির্ধারণে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বায়োটেক কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের এই টিকার তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা যুক্তরাজ্যেও চলছে। দেশটিতে প্রায় ১৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর ওপর পরীক্ষা চালানো হবে। তবে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো মিলে ১৮ বছরের বেশি বয়সী প্রায় ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবীকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এই ধাপের পরীক্ষা-নিরীক্ষা দ্রুত শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। আর তা যদি হয়, তাহলে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মডার্না, ফাইজার, অক্সফোর্ডের সঙ্গে যুক্ত হবে বায়োটেকের নোভাভ্যাক্স।

নোভাভ্যাক্স কর্তৃপক্ষ বলছে, তাদের টিকার দুটি ডোজ নিতে হবে। দুটি টিকা নেওয়ার ব্যবধান হবে তিন সপ্তাহ। এই টিকা ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা যাবে।

ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়। মডার্নার টিকা মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ছয় মাস সংরক্ষণ করা যাবে। আর সাধারণ মানসম্মত ফ্রিজে ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা যায় এক মাস।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত