শুক্রবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

প্রথম করোনা টিকা প্রয়োগের অনুমতি দিল যুক্তরাজ্য

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

প্রথম দেশ হিসেবে যুক্তরাজ্য ফাইজার এবং বায়োনটেকের করোনা ভাইরাস ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) বিবিসি এ তথ্য জানায়।

যুক্তরাজ্যের মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রোডাক্টস রেগুলেটরি এজেন্সি (এমএইচআরএ) জানায়, ফাইজারের ভ্যাকসিন কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ৯৫ শতাংশ কার্যকর।

অনুমোদন পাওয়ায় জরুরি ব্যবহারের জন্য ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করার অনুমতি পেলো ফাইজার। ফলে উচ্চঝুঁকিতে রয়েছেন, এমন ব্যক্তিদের ভ্যাকসিনটি দেওয়া যাবে এবং ভ্যাকসিন দেওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হবে।

ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্য ভ্যাকসিনটির চার কোটি ডোজ অর্ডার করেছে। প্রত্যেককে দু’টি ডোজ দেওয়া হবে। এতে সহজেই দুই কোটি মানুষের শরীরে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা যাবে।

খুব শিগগিরই প্রায় এক কোটি ভ্যাকসিন পাবে যুক্তরাজ্য। দ্রুততম সময়ের মধ্যে মাত্র ১০ মাসে ভ্যাকসিনটি তৈরি হয়েছে। একই ধাপ অনুসরণ করে আগে নতুন ভ্যাকসিন উদ্ভাবিত হতে অন্তত এক দশক সময় লাগতো।

নতুন এই ভ্যাকসিনটি একটি এমআরএনএ ভ্যাকসিন। এতে করোনা ভাইরাসের জেনেটিক কোডের ক্ষুদ্র একটি অংশ রয়েছে, যা শরীরে কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ শক্তি তৈরি করবে। এর আগে কখনো মানুষের শরীরে প্রয়োগের জন্য এমআরএনএ ভ্যাকসিন অনুমোদন দেওয়া হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের বহুজাতিক ওষুধ কোম্পানি ফাইজার এবং জার্মান বায়োটেকনোলজি কোম্পানি বায়োনটেক যৌথভাবে এ ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা জানান, ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হলেও সবাইকে এখনো করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং মাস্ক পরার পাশাপাশি, আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ থাকলে পরীক্ষা করাতে এবং আইসোলেশনে থাকতে হবে।

এদিকে বিবিসি জানাচ্ছে, যুক্তরাজ্য ২০ মিলিয়ন মানুষের জন্য দুই ডোজ করে মোট ৪০ মিলিয়ন করোনা টিকার জন্য ফাইজারের কাছে অর্ডার করে রেখেছে। যার মধ্যে ১০ মিলিয়ন ডোজ অচিরেই যুক্তরাজ্যে এসে পৌঁছাবে।

সেক্ষেত্রে, বয়স এবং ঝুঁকি বিবেচনায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা প্রয়োগ করা শুরু করবে যুক্তরাজ্য।

অন্যদিকে, যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক এও টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহ থেকে করোনা টিকা প্রয়োগের জন্য ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস (এনএইচএস) কর্মীদের প্রস্তুত থাকতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে নভেল করোনাভাইরাস। তারপর থেকেই বিশ্বব্যাপী করোনা টিকা উদ্ভাবনের লক্ষ্যে ২০০ উদ্যোগ শুরুর কথা জানিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তার মধ্যে ফাইজার, মডার্নাসহ, অক্সফোর্ডের করোনা টিকা অনেক এগিয়ে ছিল। এছাড়াও, রাশিয়ার করোনা টিকা স্পুটনিক-৫ এবং চীনের সিনোভ্যাকের অগ্রগতিও উল্লেখযোগ্য।

তবে, বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে যুক্তরাজ্যে ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনা টিকা প্রয়োগের অনুমোদন দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করল।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত