শুক্রবার, ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

পদত্যাগ করছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারণে পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। ক্ষমতাসীন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির এক জরুরি সভায় তাঁর পদত্যাগের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। জ্যেষ্ঠ আইনপ্রণেতা ও আবের ঘনিষ্ঠ বন্ধু তমোমি ইনাদা সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

শিনজো আবে পদত্যাগ করলে তাঁর জায়গা কে নেবেন, সে বিষয়টি এখনো পরিষ্কার হয়নি। অন্য আইনপ্রণেতারাও আবের পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্বাস্থ্যগত কারণে বেশ কয়েক দিন ধরেই আবের পদত্যাগের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছিল। সংবাদ সম্মেলনে আসার কয়েক ঘণ্টা আগেই তাঁর পদত্যাগের খবর আসতে শুরু করেছে।

ইনাদা সাংবাদিকদের বলেন, উত্তরসূরি না পাওয়া পর্যন্ত কাজ চালিয়ে যাবেন আবে। ক্ষমতাসীন দলের মধ্যে নির্বাচনে উত্তরসূরি খোঁজা হবে। শিনজো আবে সরাসরি পদত্যাগ করলে কিংবা পদত্যাগের ইচ্ছার কথা ঘোষণা করলে এলডিপি পার্টিতে অভ্যন্তরীণ নির্বাচন হবে, যেখানে তাঁর বিকল্প একজনকে দলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করা হবে। এরপর সংসদীয় ভোটাভুটির মাধ্যমে নবনির্বাচিত পার্টি প্রেসিডেন্টকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হতে হবে।

আজ শুক্রবার রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন এনএইচকে-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ আবের স্বাস্থ্যের দিন দিন অবনতি হচ্ছে। তিনি চান না ‍তাঁর ভঙ্গুর স্বাস্থ্যের কারণে জাপান সরকার কোনো সমস্যায় পড়ুক। স্থানীয় সময় আজ বিকেল পাঁচটায় এক সংবাদ সম্মেলনে আবে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগের ঘোষণা দেবেন বলে জাপানি সংবাদমাধ্যমগুলো খবর প্রকাশ করেছে।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে ১৬ আগস্ট সকালে টোকিওর একটি হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর এই অনির্ধারিত চিকিৎসাগ্রহণকে সরকারিভাবে নিয়মিত স্বাস্থ্যপরীক্ষা হিসেবে উল্লেখ করা হলেও জাপানের রাজনৈতিক অঙ্গনের পাশাপাশি দেশের সংবাদমাধ্যমে নানা জল্পনা ইতিমধ্যে ডানা মেলতে শুরু করে।

এএফিপর তথ্য অনুযায়ী, আগে থেকেই আলসারেটিভ কোলাইটিসে ভুগছেন তিনি। তবে নতুন ওষুধে এত দিন তা নিয়ন্ত্রণে ছিল। বিবিসির খবরে বলা হয়, দীর্ঘদিন ধরেই আলসারজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন আবে। তবে সম্প্রতি তাঁর শারীরিক সমস্যাগুলো তীব্র হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত