রবিবার, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

লকডাউনের মধ্যেও ওয়ারীতে থেমে নেই করোনার সংক্রমণ

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

প্রায় এক সপ্তাহ হতে চললো ওয়ারীতে চলছে লকডাউন। অথচ এর মধ্যে থেমে নেই করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ। বরং যে পরিমাণ নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে, তার প্রায় অর্ধেক নমুনাই আসছে কোভিড পজিটিভ। তাতে লকডাউনের কোনো সুফল মিলছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এলাকাটি কেন লকডাউন করতে হয়েছে, তা এ থেকেই বোঝা যায়। আর এলাকাবাসীর অভিযোগ, তারা প্রয়োজনে বের হতে না পারলেও বাইরের মানুষজনরা লকডাউনের আওতায় থাকা এলাকায় ঢুকতে পারছে।

গত ৪ জুলাই থেকে ওয়ারীর টিপু সুলতান রোড, যোগীনগর রোড ও জয়কালী মন্দির থেকে বলধা গার্ডেন, লারমিনি স্ট্রিট, হেয়ার স্ট্রিট, ওয়ার স্ট্রিট, র‌্যাংকিং স্ট্রিট ও নবাব স্ট্রিট এলাকায় লকডাউন শুরু হয়। লক্ষাধিক মানুষের আবাসস্থল এই এলাকায় করোনা প্রতিরোধে আগামী ২৫ জুলাই পর্যন্ত চলবে লকডাউন।

ওয়ারীর কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, লকডাউনের প্রথম চার দিনে পরীক্ষার জন্য নমুনা নেওয়া ৬৯ জনের ফলাফলে ৩১ জন করোনা পজিটিভ এসেছেন। অর্থাৎ প্রায় অর্ধেকের শরীরেই করোনা শনাক্ত হয়েছে।

স্থানীয়দের অনেকেই বলছেন, লকডাউন চলছে বলে তারা নিজেরাই দরকার পড়লেও বের হতে পারছেন না এলাকা থেকে। স্বেচ্ছাসেবী দল ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের পথরোধ করছেন। এলাকার বেশিরভাগ মানুষ ব্যবসা-বাণিজ্যে যুক্ত থাকলেও তারাও বের হতে পারছেন না। অথচ বাইরের এলাকা থেকে লোকজন ঢুকে পড়ছেন লকডাউন এলাকায়।

লকডাউন বাস্তবায়ন সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় কমিটির প্রধান দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ওয়ারী লকাডাউন করা এলাকায় সংক্রমণের যে হার দেখা যাচ্ছে, সেটা লকডাউনের যৌক্তিকতাকে আরও তুলে ধরেছে। নমুনা সংগ্রহের প্রায় ৫০ ভাগ মানুষের সংক্রমণ ধরা পড়ছে। তাই লকডাউন কঠোরভাবে পালন করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত