বুধবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

‘শিবচর-মাদারীপুর ঝুঁকিপূর্ণ, প্রয়োজনে লকডাউন’

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

জেলা হিসেবে মাদারীপুর ও জেলাটির শিবচর উপজেলা করোনাভাইরাসের ঝুঁকিতে বেশি রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। প্রয়োজনে শিবচর ও মাদারীপুর ‘লকডাউন’ করা হতে পারে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরেন, শিবচর ও মাদারীপুর ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এই এলাকাতেই বিদেশ থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষ বেশি এসেছে। তাই প্রয়োজনে এই এলাকা লকডাউন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জরুরি এক প্রেস ব্রিফিং তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে কোনো ধরনের পর্যটন চলবে না। ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠান শিথিল করার জন্য অনুরোধ করছি। আপতত বিয়ের অনুষ্ঠানও বন্ধ করা হোক। বাস, লঞ্চ ও ট্রেনেও যেন কম যাত্রী আসা- যাওয় করে, সে অনুরোধ করা হচ্ছে। যাদের জ্বর রয়েছে, তারা কোথাও আসা-যাওয়া করবেন না। এ সংকট মোকাবিলায় সব মন্ত্রণালয় একসঙ্গে কাজ করছে।

বিদেশ থেকে যারা আসছেন, তাদের উদ্দেশে জাহিদ মালেক বলেন, বিদেশ থেকে এসে সঙ্গনিরোধ (কোয়ারেনটাইন) না করে অনেকে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। অনেকে মিথ্যা কথা বলছেন। স্বীকার করছেন না যে তারা বিদেশ থেকে এসেছেন। এর মাধ্যমে তারা নিজেদের তো বটেই, অন্যদেরও ক্ষতি করছেন। বিদেশে যারা আছেন, তারা দয়া করে আসবেন না। আপনার আপনজনদের ক্ষতি করবেন না।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, সব দেশ আমাদের সাহায্য করছে। টেস্টিং কিট দিচ্ছে। আমাদের ১৭টি হটলাইন নম্বর দেওয়া আছে। প্রতিদিন আমাদের অনেক ফোন আসে। সব জেলা থেকে আমরা আপডেট পাচ্ছি। আমরা নির্বাচন কমিশনকে বলেছি মিছিল বন্ধ রাখতে। ক্লাব-সিনেমা হলও বন্ধ করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের সবার ছুটি বাতিল

নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবিলায় স্বাস্থ্য বিভাগের সবার ছুটি বাতিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সভায় জানান স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আমরা সবাই কাজ করছি। এ জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সব অধিদফতর, অধিদফতর ও সংস্থার সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ছুটি বাতিলের আদেশ বহাল থাকবে।

জাহিদ মালেক আরও বলেন, বাংলাদেশ বিশের অন্যান্য আক্রান্ত দেশের তুলনায় তুলনামূলকভাবে ভালো আছে। আমাদের আক্রান্তের হার কম, মৃত্যুও হয়েছে একজনের। যে ব্যক্তি মারা গেছেন, তিনি বয়স্ক ছিলেন। একইসঙ্গে তিনি অন্যান্য রোগেও ভুগছিলেন।

চিকিৎসা হবে ইজতেমা মাঠে, তত্ত্বাবধানে সেনাবাহিনী

করোনাভাইরাসের কারণে কোয়ারেন্টিন ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসাকাজে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমার মাঠ ব্যবহার করা হবে। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে তুরাগতীরের ওই মাঠ সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সেনাবাহিনী ওই মাঠের জায়গাটি নিয়ন্ত্রণে নিচ্ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ইজতেমা মাঠে দুই হাজার মানুষকে চিকিৎসা দেওয়া মতো ব্যবস্থা রয়েছে। প্রয়োজনে ইজতেমা মাঠেই আরও বড় পরিসরে কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। আমরা এর জন্য প্রস্তুত রয়েছি।

জাহিদ মালেক আরও বলেন, আমরা করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দুই মাস ধরে চেষ্টা করছি। এজন্য অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশ অনেক ভালো আছে। এ ছাড়া সারা দেশে পাঁচ হাজারের বেশি মানুষকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত