বৃহস্পতিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

দেশে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩ জন, মোট ১৭

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

করোনাভাইরাসে দেশে নতুন করে আরও তিনজন আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে দুইজন পুরুষ ও একজন নারী এবং তারা একই পরিবারের সদস্য। সবমিলিয়ে দেশে এখন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ জনে দাঁড়াল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন। দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ইতালি ফেরত করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে থাকায় একই পরিবারের এই তিনজন আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে দুজন পুরুষ, একজন নারী। তারা একই পরিবারের সদস্য। দুজন পুরুষের একজনের বয়স ৬৫ বছর এবং আরেকজনের ৩২ বছর। আর নারীর বয়স ২২। তবে আক্রান্ত নারীর শরীরে কোভিড-১৯ রোগের লক্ষণ মৃদু।

তিনি আরও জানান, এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে রয়েছেন ১৯ জন, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ৪৩ জন। সুস্থ হয়েছেন তিনজন।

আবুল কালাম আজাদ জানান, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো করোনাভাইরাস থাবা বসিয়েছে বাংলাদেশেও। মরণঘাতী এ ভাইরাস শনাক্তে আজ বৃহস্পতিবার দেশে আরও দুই হাজার কিট আনা হয়েছে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন এবং কয়েকটি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন পেছানোর জন্য নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা জনসমাগম এড়িয়ে চলার অনুরোধ করছি। আমরা নির্বাচন কমিশনকেও বিষয়টি জানিয়েছি। তারা জানিয়েছে যে, ইসি প্রার্থীদের অনুরোধ করবে যেন সবাই জনসমাগম এড়িয়ে চলে।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর ২৫ জানুয়ারি থেকে ৩৬৬ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।’ বৃহস্পতিবার চীন থেকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার দুই হাজার কিট এসেছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১১টি দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৯ জন। এর মধ্যে বাংলাদেশে একজন। এছাড়া বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেনটাইনের আছেন ৪৩ জন এবং আইসোলেশনে রয়েছেন ১৯ জন। তবে বাংলাদেশে এখনও কমিউনিটি ট্রান্সমিশন শুরু হয়নি। এটি পরিবারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে।

আইইডিসিআর-এ করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যোগাযোগ করতে হটলাইনের পাশাপাশি ইমেইল ও ফেসবুক আইডিতে মেসেজ করার পরামর্শ দেওয়া হয় সংবাদ ব্রিফিংয়ে।

তবে দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা একজনই বলে জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক। গতকাল বুধবার তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

করোনাভাইরাস নিয়ে আইইডিসিআরের হটলাইনে এখন পর্যন্ত মোট ২ লাখ ২৮ হাজার ৮৩৮ জন সেবা নিয়েছেন বলেও জানান আবুল কালাম আজাদ।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করেনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়। তবে প্রথমধাপে আক্রান্তদের তিনজন সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত