শুক্রবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

করোনায় ইউরোপের তিন দেশে এক দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারিপীড়িত ইউরোপের তিন দেশে এক দিনে রেকর্ডসংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে এক দিনে ইতালিতে ৩৬৮, স্পেনে ৯৭ ও ফ্রান্সে ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ সোমবার বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, ইউরোপের ওই তিন দেশে এখন মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। ইতালিতে ১ হাজার ৮০৯ জন, স্পেনে ২৮৮ জন ও ফ্রান্সে ১২০ জন মারা গেছে। ইউরোপের আরেক দেশ যুক্তরাজ্যে এক দিনে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট মৃত মানুষের সংখ্যা ৩৫।

ইউরোপজুড়ে সরকাররা নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের চলাচলে বিধিনিষেধ এবং সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক ও লুক্সেমবার্গের সঙ্গে জার্মানি আজ সকাল থেকে নিয়ন্ত্রণব্যবস্থা আরোপ করেছে। পর্তুগাল স্পেনের সঙ্গে সীমান্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে যাচ্ছে। চেক প্রজাতন্ত্র শহরগুলোয় নাগরিকদের চলাফেরায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে। সেখানে লোকজন কাজে যেতে পারবে, ওষুধ ও খাবার কিনতে পারবে, জরুরি প্রয়োজনে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে পারবে। এর বাইরে অবাধে চলাচল ২৪ মার্চ পর্যন্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রিয়া পাঁচজনের বেশি লোকের জমায়েত হওয়া আজ থেকে নিষিদ্ধ করেছে। আয়ারল্যান্ড ২৯ মার্চ পর্যন্ত পাবগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। ইউরোপের অনেক দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে। চীনে ব্যাপক প্রাণহানির পর ভাইরাসটি অন্য দেশে ছড়ায়। এখন ইউরোপকে প্রাদুর্ভাবটির নতুন কেন্দ্রস্থল বলে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এই সংকটের আরও বিস্তৃতির আভাস রেখে সুইজারল্যান্ডে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮০০ জন আক্রান্ত হয়ে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ২০০। সেখানে মারা গেছে ১৪ জন।

বৈশ্বিক এই মহামারি বা প্যানডেমিকের বড় ভার এখন ইতালির ঘাড়ে। শুধু লোম্বার্ডিতে আক্রান্ত হয়েছে ২৪ হাজার ৭৪৭ জন এবং মারা গেছে ১ হাজার ২১৮ জন। গত সোমবার থেকে ইতালিতে দেশজুড়ে সবকিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মানুষের চলাচলের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে এবং খাবার ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। স্কুল, জিম, জাদুঘর, নাইট ক্লাব এবং অন্যান্য ভেন্যু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

স্পেনে মোট আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৭ হাজার ৭৫৩। ফ্রান্সে ৫ হাজার ৪০০ জন।

বিশ্বজুড়ে এখন করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ৬২ হাজার ৬৮৭। এর মধ্যে অর্ধেকই—৮১ হাজার ৩ জন—আক্রান্ত হয় চীনে। মারা গেছে ৬ হাজার ৬৫ জন। এর মধ্যে ৩ হাজার ৮৫ জন চীনের। যুক্তরাষ্ট্রে ৩ হাজার ২৪৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৬২ জন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত