বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

ধর্ষক পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট: প্রধানমন্ত্রী

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্ষণ, নারী নিপীড়ন এখন বিশ্বব্যাপী সমস্যা। যারা নারীদের ওপর পাশবিক নির্যাতন করে, তারা পশুর চেয়েও অধম। তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে। ধর্ষণ রোধে পুরুষদেরও সোচ্চার হতে হবে, পাশাপাশি সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে।

রোববার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নারীরা সচেতন হয়েছেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগে নারীরা নির্যাতনের শিকার হলে তা লোকলজ্জার ভয়ে বলার সাহস পেত না। মামলা করতে চাইত না। আমরা এ পরিস্থিতি থেকে নারীদের বের করে আনার পদক্ষেপ নিয়েছি। দোষীদের যথাযথ শাস্তি দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। যার কারণে নারীরা এখন নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার সাহস করছে, মামলা করছে।

মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে নারীর গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সব বীর নারীসহ দুই লাখ নির্যাতিত মা-বোন এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নারী জাগরণের অগ্রদূতদের, যাদের আত্মত্যাগ ও নিষ্ঠার বিনিময়ে নারীর সমঅধিকার এবং মর্যাদা প্রতিষ্ঠার আন্দোলন সফল হয়েছে, আমি তাদের শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি। তারা ইতিহাসের পাতায় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন যুগ যুগ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ আজকে আথর্-সামাজিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। এই গতিধারাটা আমাদের অব্যাহত রাখতে রেখে চলতে হবে। বাংলাদেশের এই অগ্রযাত্রা আর যেন থেমে না যায়। আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করছি। জাতির পিতা আমাদের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। তার জন্মশতবার্ষিকী আগামী ১৭মার্চ উদযাপন শুরু করবো। আমরা যেন সফলভাবে করতে পারি, আমি সকলের সহযোগিতা কামনা করি।’

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব নিয়ে দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আর একটি সমস্যা সারা বিশ্বব্যাপী এখন, সেই করোনাভাইরাস। এই করোনাভাইরাস করতে করতে অনেক দেশ এখন অর্থনৈতিকভাবে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। আমরা কিন্তু সারাক্ষণ মনিটর করছি। কোথাও যদি কোনো সমস্যা দেখা দেয়, যথাযথ আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

‘তবে এ ক্ষেত্রে আমি বলব সবাইকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা এবং এরইমধ্যে প্রতিদিন কিন্তু আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রতিদিনেই নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে, কীভাবে চলতে হবে, কীভাবে কাজ করতে হবে। সবাইকে সেই নির্দেশনাগুলো মেনে চলার জন্য আমি অনুরোধ করব। প্রত্যেকেই যদি এ ব্যাপারে একটু সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারে এবং সেই ব্যাপারে মেনে চলতে পারেন, ইনশাআল্লাহ এ ধরনের সমস্যা মোকাবিলা করতে যথেষ্ট আমাদের সক্ষমতা আছে এবং আমরা তা পারব। কাজেই এখানে ঘাবড়ানোর কিছু নেই।’

এ ক্ষেত্রে আমাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার নির্দেশনাগুলো সকলকে মেনে চলার অনুরোধ জানান প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে নারী উন্নয়ন ও বঙ্গবন্ধু শিরোনামে একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার।

এবার আন্তর্জাতিক নারী দিবসে ৫ জন নারীকে জয়িতা পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। এরা হলেন আনোয়ারা বেগম, সুপর্ণা দে সিম্পু, সফল জননী মমতাজ বেগম, অরনিশা মেহেরিন ঋতু এবং ভেলরী অ্যান টেলর।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত