সোমবার, ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

ট্রাম্পেরই জয় হলো সিনেটে

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

সিনেটে রিপাবলিকানদের পাল্লা ভারী। তাই ভাবা হচ্ছিল, যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের এই উচ্চকক্ষে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসনের শিকলে আটকানো যাবে না। বাস্তবে হলোও তা-ই। সিনেটরদের ভোটাভুটিতে টিকে গেলেন ট্রাম্প। অভিশংসনের গ্যাঁড়াকল থেকে মুক্তি পেয়ে বহাল তবিয়তেই ক্ষমতায় রয়ে গেলেন তিনি। আজ বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেট বুধবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনা অভিশংসন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে তাঁকে বেকসুর খালাস দিয়েছে।

ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছিলেন ট্রাম্প। পরে তাঁর অভিশংসন বিচার সিনেটে আসে। বিচার-প্রক্রিয়ায় কয়েক দিন ধরে শুনানি, যুক্তি-পাল্টা যুক্তি শেষে সিনেটে বুধবার চূড়ান্ত ভোটাভুটি হয়। রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেট ট্রাম্পকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতির পক্ষে ভোট দেয়।

দুটি অভিযোগে সিনেটে ট্রাম্পের বিচার হয়—ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দান।

সিনেটে প্রথম অভিযোগ (ক্ষমতার অপব্যবহার) নাকচ হয় ৫২-৪৮ ভোটে। আর দ্বিতীয় অভিযোগ (কংগ্রেসের কাজে বাধা দান) নাকচ হয় ৫৩-৪৭ ভোটে।

সিনেটের বিচারে ট্রাম্প অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার অর্থ, তিনি ক্ষমতা থেকে অপসরণ হচ্ছেন না।

ফলটা যে এটাই হবে, তা আগেই ধারণা করা হয়েছিল। কারণ, ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে সিনেটে ডেমোক্র্যাটদের পর্যাপ্ত ভোট নেই।

আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্রেটিক নেতা জো বাইডেন। তাঁকে ধরাশায়ী করতে ট্রাম্পের তৎপরতা ঘিরে ঘটনার সূত্রপাত।

অভিযোগ ওঠে, জো বাইডেন ও তাঁর ছেলে হান্টার বাইডেনের ইউক্রেনে অতীত ব্যবসায় দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে চাপ দিতে দেশটির জন্য বরাদ্দকৃত সামরিক সহায়তা স্থগিত করেন ট্রাম্প। পরে ট্রাম্প নিজেই ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিকে ফোন করে বলেন, বাইডেন ও তাঁর ছেলের দুর্নীতির অভিযোগ তদন্ত করলে সামরিক সহায়তার ওপর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

ট্রাম্পের কথোপকথন এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ফাঁস করে দেন। এতে মার্কিন রাজনীতি গরম হয়ে ওঠে।

ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে গত বছরের সেপ্টেম্বরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন কার্যক্রম শুরু করেন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা। ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রতিনিধি পরিষদে গত ডিসেম্বরে ট্রাম্প অভিশংসিত হন।

গত ২১ জানুয়ারি ট্রাম্পের বিচার শুরু হয় ক্ষমতাসীন দল রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটে। এ বিষয়ে বুধবার হয় চূড়ান্ত ভোটাভুটি। এদিন সব অভিযোগ থেকে ট্রাম্প অব্যাহতি পান।

সিনেটে অব্যাহতি পাওয়ার বিষয়টি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য একটি বড় বিজয়।

ট্রাম্প বরাবরই দাবি করে এসেছেন, তিনি কোনো অন্যায় করেননি। ডেমোক্র্যাটরা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাঁকে ক্ষমতা থেকে অপসারণ করতে চান।

রিপাবলিকানরাও বলে এসেছেন, অভিশংসন করার মতো কিছু করেননি ট্রাম্প।

সিনেটে ট্রাম্পের বিচারের রায় আগে থেকেই অনুমান করা যাচ্ছিল। আর শেষ পর্যন্ত অনুমান সত্যই হলো।

ট্রাম্প তাঁর শীর্ষ সহযোগীদের সঙ্গে নিয়ে হোয়াইট হাউসে বসে সিনেটের চূড়ান্ত ভোটাভুটি দেখেছেন। সিনেটে অব্যাহতি পাওয়ার পর এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বৃহস্পতিবার প্রকাশ্য বিবৃতি দেবেন তিনি। ইতিমধ্যে ট্রাম্প তাঁর অব্যাহতিকে দেশের ‘বিজয়’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত