সোমবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

চীনের নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে সে দেশের নাগরিকদের জন্য অন অ্যারাইভাল (আগমনী ভিসা) আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন আজ রোববার সকালে তাঁর দপ্তরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

আগামী মঙ্গলবার চারদিনের সফরে ইতালি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর সেই সফর উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল শনিবার বিকেল পাঁচটায় ৩১৬ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে চীন থেকে দেশে ফেরে বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ উড়োজাহাজ। গতকাল বেলা ১১টা ৫৩ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজটি অবতরণ করে। পরে সেখান থেকে বাংলাদেশি লোকজনকে বাসে করে সরাসরি আশকোনা হজ ক্যাম্পে নেওয়া হয়। বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ একটি উড়োজাহাজ চীনে বাংলাদেশিদের আনতে যায়।

করোনা ভাইরাসের প্রকোপের ফলে বাংলাদেশ ও চীনের বাণিজ্যিক সম্পর্কে কোনো প্রভাব পড়বে কি না—এ প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গতকাল শনিবার চীনের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। রাষ্ট্রদূতকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে মাসখানেকের জন্য বাংলাদেশে থাকা চীনা নাগরিকেরা যেন দেশে যাওয়া এড়িয়ে চলেন। এ ছাড়া চীনের নাগরিকদের জন্য আপাতত অন–অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ থাকবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যদি বাংলাদেশে আসার প্রয়োজন হয়ে পড়ে সে ক্ষেত্রে চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে ভিসার আবেদন জানানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে এটি কোনো সমস্যা হবে কিনা, জানতে চাইলে একে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে অত্যন্ত ভালো সম্পর্ক। এর কোনো প্রভাব বাণিজ্যে পড়বে না।’

ইতালি সফরে বন্ধুত্বের বার্তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে ইতালির উদ্দেশে মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সফরে প্রধানমন্ত্রী ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে বন্ধুত্বের বার্তা দেবেন।

ড. মোমেন বলেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে ব্রিটেনের বিচ্ছেদের (ব্রেক্সিট) ফলে কোনো সমস্যা হবে না। ব্রেক্সিট বাংলাদেশ ও ব্রিটেন দুই দেশের জন্যই ভালো কিছু নিয়ে আসবে।’

‘এ সফরে ইতালির প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সফরে প্রধানমন্ত্রী দেখা করবেন পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গেও।’

প্রধানমন্ত্রী ইতালির রোমে নিজস্ব জমিতে নির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাসের নতুন চ্যান্সারি ভবনের উদ্বোধন করবেন বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘ইতালির কাছ থেকে প্রতিরক্ষা কিছু আইটেম কিনেছি। আরও আলোচনা চলছে। তবে এ নিয়ে কোনো চুক্তি বা সমঝোতার সম্ভাবনা নেই।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘অবৈধ বাংলাদেশি যারা ইতালিতে আছেন,…আমরা চাই না কেউ অবৈধ থাকুক। ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে যাওয়াটা অন্যায় কাজ।’

তিনি বলেন, ‘ট্রাভেল এজেন্সি অনেককেই প্রথমে লিবিয়ায় নিয়ে যায়, পরে অত্যাচার করে টাকা আদায় করে, নৌকায় করে সাগরে ভাসিয়ে দেয়, তারা ডুবে মারা যায়। অভিভাবকদের বলব টাকা না দিতে। বরং সেই অর্থ দিয়ে দেশে ব্যবসা করুক। আমরা (এভাবে বিদেশে পাঠানোর কাজ করা) ১৮টি প্রতিষ্ঠানের নাম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দিয়েছি, তারা (ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে) ব্যবস্থা নিয়েছে।’

সফর সূচি

৪ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে ইতালির উদ্দেশে যাত্রা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা।

ফ্লাইটটি বিকেল সোয়া ৪টার দিকে (স্থানীয় সময়) রোমের ফিয়ামিকিনো বিমানবন্দরে পৌঁছাবে। ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান শিকদার বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন।

সন্ধ্যায় পারকো দে প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেলে প্রবাসী বাংলাদেশির এক আয়োজনে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

পরদিন ৫ ফেব্রুয়ারি পাজাজো চিগিতে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা করবেন শেখ হাসিনা। যোগ দেবেন সরকারি মধ্যাহ্নভোজে।

৬ ফেব্রুয়ারি বিকেলে ইতালীয় ব্যবসায়ী সংস্থাগুলোর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে পারকো দে প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেলে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী। সন্ধ্যায় একই স্থানে বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের দেয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন তিনি।

৭ ফেব্রুয়ারি দুপুর দেড়টায় (স্থানীয় সময়) এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে মিলান মালপেন্সা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান শিকদার বিমানবন্দরে বিদায় জানাবেন প্রধানমন্ত্রীকে।

৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টায় শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী।

বিদেশিদের ধন্যবাদ

শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিদেশি পর্যবেক্ষকদের নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সিটি নির্বাচনে বিদেশিরা কোড অব কন্ডাক্ট মেনে চলায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।’

সীমান্ত হত্যার বিষয়ে হাইকমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ

সীমান্তে হত্যাকাণ্ড নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি বছর আমরা এ ইস্যুতে ভারতীয় হাইকমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত