বৃহস্পতিবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

ইভিএম পুড়িয়ে রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে আজ রোববার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করছে বিএনপি। হরতালকে কেন্দ্র করে সকাল ৭টার দিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী নেতৃত্বে দলটির নেতাকর্মীরা নয়াপল্টনে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় প্রতীকী ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পুড়িয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।

সকাল সাড়ে ৯টায় নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগ দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবেদ রাজা, অ্যাডভোকেট নিপুন রায় চৌধুরী, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে হরতাল ঘিরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিপুলসংখ্যক আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়া রাজধানীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। নির্বাচনী দায়িত্বের অংশ হিসেবে মাঠে রয়েছে বিজিবিও।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘হরতাল গণতন্ত্রের অন্যতম অস্ত্র। গণতন্ত্রের এই অস্ত্রের মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের দাবি আদায় করব। হরতাল মানে কোনো বিধ্বংসী কাজ নয়, হরতাল মানে আগুন দিয়ে পোড়ানো নয়। হরতাল হচ্ছে শান্তিপূর্ণভাবে আমরা মানুষকে বলবো গাড়ি চালাবেন না, আপনারা দোকানপাট খুলবেন না। বিশ্ব নেতারাও এই হরতালের কথা বলেছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটাকে ভিন্নখাতে চিহ্নিত করেছেন। আমরা ওই খাতে যাব না। আমরা শান্তি অস্ত্র প্রয়োগ করব। আমাদের এখানে যত নেতাকর্মী আছে প্রত্যেকেই শান্তিপ্রিয়।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আমরা গণতন্ত্র উদ্ধারের জন্য, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য, প্রয়োজনে নিজের শার্টের বোতাম খুলে গুলি বরণ করব। তবু অশান্তি সৃষ্টি করবো না। আমাদের রক্ত ঝরবে কিন্তু আমরা অন্য কারও রক্ত ঝড়াবো না।’

বেলা সোয়া ১২টার দিকে আসেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দিতা করা ইশরাক হোসেন। তিনি এসেই স্লোগান শুরু করে বলেন, ‘প্রহসনের নির্বাচন মানি না মানবো না। ‘পড়ে তিনি মাটিতেই বসে পড়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে স্লোগান দেন।

এর কিছুক্ষণ পর রুহুল কবির রিজভী বিক্ষোভ কর্মসূচির বিরতি ঘোষণা করেন বলেন, ‘বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা নাগাদ আবারও এই কর্মসূচি চলবে।’

পরে নেতাকর্মীদের নিয়ে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রবেশ করেন রিজভী।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত