শুক্রবার, ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

বহিরাগত এনে কেন্দ্রগুলোতে ঢোকানোর পাঁয়তারা চলছে: আতিক

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘নির্বাচন বানচাল করার ইচ্ছা আমাদের নাই। নির্বাচন হবেই হবে। বরং নৌকার বিজয় দেখে প্রতিপক্ষ টালবাহানা করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘নৌকার কোনো ব্যাকগিয়ার নাই। নৌকার গিয়ার একটিই। সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে নৌকার সমর্থকরা সহযোগিতা করে যাবে।’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ভাষানটেক এলাকায় নির্বাচনি প্রচারণায় এসব কথা বলেন মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

আতিকুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ‘শুনেছি প্রচুর বহিরাগত এনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঢোকানোর পাঁয়তারা চলছে। ঢাকার ভোটার নন এমন লোক বিভিন্ন জেলা থেকে এনে তারা নির্বাচনের দিন সন্ত্রাস চালাবে। ভোটের পরিবেশ নষ্ট করতে তারা এমন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। ’
এরপর এসবে কান না দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে সমর্থকদের আহ্বান জানান আতিকুল ইসলাম।

আতিক বলেন, ‘নৌকায় গণজোয়ারের সৃষ্ঠি হয়েছে। কোনো অপশক্তি আমাদের এই গণজোয়ার থামিয়ে রাখতে পারবে না। অনেকেই জানতে চেয়েছেন, নির্বাচন বানচাল হবে কি-না। আমি বলতে চাই, তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই। কারণ নৌকার একটাই গিয়ার। আর তা হলো উন্নয়নের গিয়ার। নির্বাচন হবেই হবে, ইনশাল্লাহ। আর দুদিন বাকি আছে। আমরা সবাই ভোটের আমেজ নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দেব। ইনশাআল্লাহ আমরা অবশ্যই নৌকাকে জয়যুক্ত করব।’

তিনি বলেন, ‘আমি আমার কর্মীদের অনুরোধ করব, আর মাত্র দুটি দিন আছে। সবাই নির্বাচনের আমেজ নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দেবেন এবং নৌকাকে জয়যুক্ত করবেন।

ভাষানটেকের বাসিন্দাদের উদ্দেশে আতিকুল বলেন, ‘আমি মেয়র হলে এই ভাষানটেকের সরু রাস্তা প্রধান সড়কের মতো চওড়া করে দেব। এখানের বস্তিবাসীদের পুনর্বাসন ছাড়া উচ্ছেদ করা হবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি। ’

বস্তিবাসীদের পুনর্বাসন ছাড়া উচ্ছেদ করা হবে না জানিয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘২০১৯ সালের ৭ মার্চ প্রধানমন্ত্রী ভাষানটেক বস্তিবাসীদের কীভাবে পুনর্বাসন করা যায় তা জিজ্ঞেস করেছিলেন। সে বিষয়ে আমাকে সিদ্ধান্ত নিতে বলেছিলেন। প্রতিটি মানুষকে পুনর্বাসন না করা পর্যন্ত ভাষানটেক এলাকা থেকে কাউকে উচ্ছেদ করা হবে না। এই বস্তিতে যারা আছে তারাও মানুষ, আমরাও মানুষ। মানুষকে মানুষের মতো সম্মান দিতে হবে। ১ ফেব্রুয়ারি যদি নৌকা মার্কাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেন তবে ইনশাল্লাহ কথা দিতে পারি, সবাইকে সঙ্গে নিয়ে বস্তিবাসীদের পুনর্বাসন করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘নৌকা এনে দিয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা। নৌকা দিচ্ছে বাংলাদেশের উন্নয়ন। যদি আপনারা ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেন তবে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তুলব। এই ভাষানটেকের রাস্তা চওড়া করার কাজ এরই মধ্যে করেছি। যদি বিজয়ী হই তবে ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত থাকবে।’

এ সময় আতিকুল ইসলামের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, অভিনেত্রী তানভিন সুইটি, বাধন, গায়ক হায়দার আলীসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত