মঙ্গলবার, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

এমন আজগুবি কথা জীবনেও শুনিনি, মাহবুব প্রসঙ্গে কাদের

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি এখন যে সুরে কথা বলছে, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারও একই সুরে কথা বলছেন। এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড—এই রকম আজগুবি কথা জীবনেও শুনিনি।’

আজ সোমবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

নির্বাচন কমিশনেই কোনো ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ (সবার জন্য সমান সুযোগ) নেই বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। গতকাল রোববার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি। মাহবুব তালুকদার বলেন, নির্বাচন কমিশন সভায় তাঁর প্রস্তাব বা সুপারিশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে অগৃহীত হয়। তাঁকে সংখ্যালঘিষ্ঠ হিসেবে না দেখে বক্তব্যের বিষয়বস্তুর গুরুত্ব (মেরিট) বিবেচনায় নেওয়া প্রয়োজন। কমিশন সভায় তাঁর বক্তব্য দেওয়ার স্থান সংকুচিত হয়ে পড়েছে। নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরেই কোনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই।

মাহবুব তালুকদারের বক্তব্যের বিষয়ে এক সাংবাদিক জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটি নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সেখানে একজন কমিশনার ভিন্নমত পোষণ করতেই পারেন। কিন্তু তিনি (মাহবুব তালুকদার) কথায় কথায় যেভাবে তাঁদের ঘরের বিষয়, অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়া বাইরে নিয়ে আসছেন, সেটা অবশ্যই সমর্থনযোগ্য নয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরে আবার লেভেল প্লেয়িং বিষয় কী? তিনি (মাহবুব তালুকদার) ভিন্নমত পোষণ করতেই পারেন। তবে ইদানীং বিএনপি যে সুরে কথা বলছে, একই সুরে মাহবুব তালুকদারও কথা বলছেন। মনে হয়, তিনি একটা পক্ষ নিয়ে এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।’

গতকাল রোববার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের নির্বাচনী প্রচারের সময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। দুই পক্ষ একে অপরের দিকে ইটের টুকরা নিক্ষেপ করে। লাঠিসোঁটা দিয়ে হামলা করে। হামলার মধ্যে গুলির শব্দ শোনা যায়। এই ঘটনায় উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হন।

ওই ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সেখানে ভিডিও ফুটেজ আছে। গুলি কোন পক্ষ থেকে এসেছে, অফিসে লাথি মারা, এগুলোর ভিডিও ফুটেজে আছে। নির্বাচন কমিশনের উচিত সঠিক তদন্ত করা। সত্য উদ্‌ঘাটন করা।’

Print Friendly, PDF & Email

মতামত