মঙ্গলবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

যুদ্ধাপরাধ নয়, গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিচার চলবে: আইসিজে

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

যুদ্ধাপরাধ নয় মিয়ানমারে গণহত্যার আলামত পাওয়া গেছে। জাতিসংঘের আর্ন্তজাতিক আদালতে (আইসিজে) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগে গাম্বিয়ার করা মামলা চলবে। আইসিজে বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ৪টি অন্তবর্তী আদেশ জারি করেছে।

আইসিজে’র ১৭ জন বিচারকের (অনুপস্থিত একজন) সমন্বয়ে গঠিত বিচারিক পরিষদের পক্ষে আদালতের প্রেসিডেন্ট বিচারক আব্দুলকাওয়ী আহমেদ ইউসুফ বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) অর্ন্তবর্তী আদেশ ঘোষণায় বলেন, জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন মিয়ানমার নিয়ে যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আদালত তা আমলে নিয়েছে। ওই প্রতিবেদনে মিয়ানমারে চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন, হত্যা, গুম , খুন, ধর্ষণ, জমি দখলসহ গণহত্যার কথা বলা হয়েছে।

এছাড়াও জাতিসংঘের সর্বশেষ সাধারণ অধিবেশনেও বলা হয়েছে যে মিয়ানমারের পরিবেশ মানবাধিকারের জন্য ইতিবাচক নয়, বিশেষত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য মিয়ানমার ঝুঁকিপূর্ণ।

আদালতের প্রেসিডেন্ট বিচারক আব্দুলকাওয়ী আহমেদ ইউসুফ বলেন, আদালত এইসব তথ্য-উপাত্ত অমলে নিয়ে মিয়ানমারের আবেদন নাকচ করছে। মিয়ানমার দাবি করেছে, রাখাইনে যুদ্ধাপরাধ ঘটেছে, গণহত্যা নয়। কিন্তু আদালত একাধিক প্রতিবেদন থেকে মিয়ানমারে গণহত্যার আলামত দেখতে পেয়েছে। তাই গাম্বিয়ার আবেদনের প্রেক্ষিতে গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে এই মামলা এই আদালতে চলবে।

বিচারক আব্দুলকাওয়ী আহমেদ ইউসুফ আদেশে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ৪টি অন্তবর্তী আদেশ দেন। বিচারক আব্দুলকাওয়ী আহমেদ ইউসুফ বলেন, রোহিঙ্গা গণহত্যা, নির্যাতন ও নিপীড়ন বন্ধে মিয়ানমারকে সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীসহ সকল সশস্ত্র বাহিনী ও সংগঠনকে গণহত্যার ষড়যন্ত্র থেকে নিবৃত্ত রাখতে মিয়ানমারকে ব্যবস্থা নিতে হবে। গণহত্যার আলামত যাতে নষ্ট না হয় মিয়ানমারকে সে পদক্ষেপ নিতে হবে। রোহিঙ্গা গণহত্যা, নির্যাতন এবং নিপীড়ন বন্ধে আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের বিষয়ে মিয়ানমারকে আগামী চারমাসের মধ্যে আইসিজে’তে প্রতিবেদন পেশ করতে হবে। এই মামলা চলাকালীন প্রতিমাসে ৬ মাস পরপর মিয়ানমারকে এই বিষয়ে এই আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

এর আগে, ১১ নভেম্বর গাম্বিয়া মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানোর তথ্য উত্থাপন করে এবং গাম্বিয়া মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আর্ন্তজাতিক গণহত্যা প্রতিরোধ বিয়ষক কনভেনশন লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে ন্যায় বিচার চায়। পাশাপাশি গণহত্যা বন্ধের জন্য আদালতের কাছে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অন্তবর্তী ৬টি আদেশ চায় গাম্বিয়া, বিপরীতে আদালত ৪টি আদেশ দেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত