রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে জাতির জন্য কোনো দিকনির্দেশনা নেই : : মির্জা ফখরুল

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

সরকারের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ভাষণে জাতির জন্য কোনো দিক নির্দেশনা নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের কাছে দেওয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যে ভাষণ দিয়েছেন তাতে জাতি হতাশ ও ক্ষুব্ধ। বর্তমান বাংলাদেশের রাজনীতিতে অর্থনীতি হচ্ছে প্রধান সংকট। এটা হচ্ছে পুরোপুরি ভাবে রাজনৈতিক সংকট। একটি অনির্বাচিত সরকার ক্ষমতা দখল করে বসে আছে। এমন একটি নির্বাচন হয়েছে যেটা ৩০ তারিখে হয়নি ২৯ ডিসেম্বর রাতেই ভোট ডাকাতি হয়েছে। সেই হিসেবে জাতির একটি প্রত্যাশা ছিল সংকট নিরসনের একটি পথ তার বক্তব্যের মধ্যে থাকবে। এ নির্বাচন বাতিল করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নির্বাচনের কথা তিনি বলেন। কিন্তু কোনোটাই তিনি করেন নি। এই সংকট নিরসনে তিনি কোনো পথ দেখান নি।’

শেখ হাসিনার বক্তব্য সত্য নয় দাবি করে তিনি বলেন, ‘৭৫ এর পরের বছরগুলোতে মানুষ জরাজীর্ণ ছিল, মানুষের কঙ্কাল দেহ ছিল’ একথাগুলো চরম উল্টো। তার আগে ৭২-৭৫ সাল এদেশে একটি চরম দুর্ভীক্ষ হয়েছিল তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার আমলে, তাদের দুঃশাসনের কারণে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘৭৫ এর পরে জিয়াউর রহমানের যোগ্য নেতৃত্বে এদেশে পরিবর্তন ঘটে। আজকে বাংলাদেশে যে অর্থনৈতিক ভিত্তি এটার রচনা করেন জিয়াউর রহমান। আর গড়ে তোলেন মুক্তবাজার অর্থনীতি। বিদেশের কাছে রফতানি বাড়ানো হয়। যে গার্মেন্টস সেক্টরের মাধ্যমে আমরা টিকে আছি এবং রেমিট্যান্স আসছে, এটা জিয়াউর রহমান শুরু করেন। এ বিষয়গুলো শেখ হাসিনা তার বক্তৃতায় তুলে ধরেননি।’

‘তার বক্তব্যের আরেটি বিষয় হচ্ছে দোষারোপ করা। তিনি বলেছেন, বিএনপি সন্ত্রাস করেছে। ভুলে গেছেন ওনারা যে ১৭৩ দিন হরতাল করেছেন। কেয়ারটেকার সরকারের দাবিতে এবং সেই সময় বাসে ১১জন ব্যাক্তিকে পুড়িয়ে মারা হয়েছিল। আর অনেক লোক মারা গিয়েছিল এই আন্দোলনের ফলে’— বলেন মির্জা ফখরুল।

প্রধানমন্ত্রী বক্তব্যে তাঁর ওপর ভরসা রাখার কথা বলেছেন। এ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ব্যাংকগুলো যেভাবে ভেঙে পড়েছে মানুষ আস্থা রাখবে কোথা থেকে। অর্থনীতির অবস্থা খারাপ, মানুষের জীবন দুর্বিষহ।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণকে আত্মতুষ্টির বলে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ওনারা জনগণের থেকে দূরে সরে গেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত