বুধবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ : ধর্ষককে গ্রেপ্তারের দাবিতে উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে ক্যাম্পাস এলাকা। পুরো ক্যাম্পাস জুড়েই শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, সমাবেশ, মানববন্ধন চলছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এই প্রতিবাদে যোগ্ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সব ছাত্র সংগঠন গতকাল রোববার দিবাগত রাতের বিভিন্ন সময়ে পর্যায়ক্রমে কর্মসূচি পালন করে চলেছে।

ধর্ষণের ঘটনায় প্রতিবাদ ও ধর্ষককে গ্রেপ্তার এবং বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা নানা স্লোগান দিচ্ছেন। তাঁরা ব্যানার–প্ল্যাকার্ড বহন করছেন।

দুপুর একটার দিকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বড় মিছিল বের করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেন। বিক্ষোভে সাবেক শিক্ষার্থীদেরও দেখা গেছে। শাহবাগে চলছে প্রতিবাদ সমাবেশ।

ক্যাম্পাসজুড়ে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী নানাভাবে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন।

ছাত্রলীগের ব্যানারে বেলা ১১টায় সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিশাল মানববন্ধন করে তারা। এখনো সেখানে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা শাহবাগে সড়ক অবরোধ করেন। বেলা দেড়টার দিকে তাঁরা অবরোধ তুলে নেন। এ সময় ধর্ষণের প্রতিবাদ ও বিচার চেয়ে নানা ধরনের প্ল্যাকার্ড-ব্যানার ছিল তাদের হাতে।

ছাত্রলীগের সমাবেশ থেকে অপরাধীদের গ্রেপ্তার ও দ্রুত বিচারের দাবি উঠেছে।

ছাত্রদল, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বিভিন্ন বাম সংগঠন, টিএসসি কেন্দ্রিক সামাজিক–সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও কর্মসূচি পালন করেছে। ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ বেলা তিনটায় আবারও কর্মসূচি করবে।

অন্যদিকে ছাত্রী নির্যাতন ও ধর্ষণে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এ ছাড়া ছাত্রী নির্যাতনের প্রতিবাদে ঢাবি শামসুন নাহার হলের ভিপি তাসনীম আফরোজ ইমির আহ্বানে বিক্ষোভ ও মানববন্ধনের ডাক দিয়েছে শিক্ষার্থীদের আরেকটি অংশ।

জানা গেছে, বিক্ষোভে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বাম সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছে। পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক সাধারণ শিক্ষার্থী উপস্থিত রয়েছেন।

কর্মসূচি থেকে ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণে জড়িত ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা স্লোগান দেন, ‘ধর্ষকদের ঠিকানা, বাংলাদেশে হবে না’ ইত্যাদি।

এদিকে ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের এক ছাত্র একাই অনশনে বসেছেন বলে জানা গেছে। অনশনে বসা ওই ছাত্রের নাম সিফাতুল ইসলাম। তিনি দর্শন বিভাগের ২০১৩/১৪ সেশনের ছাত্র। পরে তার সঙ্গে যোগ দেন আর কয়েকজন শিক্ষার্থী। সেখানে ব্যানারে লেখা রয়েছে, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে অনশন।’

সিফাতুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের বোন ধর্ষণের শিকার হয়েছে তার প্রতিবাদে আমরা অনশন পালন করছি। আমরা দ্রুত ধর্ষকদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।’

এর আগে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় কুর্মিটোলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে নেমে যাওয়ার পর তাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ করেন ওই ছাত্রী।

জানা গেছে, গতকাল বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শেওড়া যাওয়ার উদ্দেশে ঢাবির বাসে ওঠেন ওই শিক্ষার্থী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে শেওড়ার বিপরীত পাশে কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামেন তিনি। সেখানে অজ্ঞাত ব্যক্তি মুখ চেপে তাকে পাশের একটি স্থানে নিয়ে অজ্ঞান করে ধর্ষণ করে।

রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরলে তিনি নিজেকে নির্জন স্থানে আবিষ্কার করেন। সেখান থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গন্তব্যে পৌঁছান ওই ছাত্রী। পরে রাত ১২টার দিকে তাকে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করান তার সহপাঠীরা।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত আছেন। আর সুচিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত