রবিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

এ হার আমার, বিজেপির নয় : ঝাড়খন্ডের মুখ্যমন্ত্রী

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

বছর শেষে ভারতের ক্ষমতাসীন পার্টি বিজেপিকে পরাজয়ের স্বাদ নিতে হলো। গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য ঝাড়খন্ডে বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস জোট জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। পরাজয় মেনেও নিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। গতকাল সন্ধ্যায় তিনি বলেছেন, ঝাড়খন্ডের গণরায়কে সম্মান করে বিজেপি। এদিকে ঝাড়খন্ডের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস বলেছেন, এ হার শুধু আমার, দল হিসেবে বিজেপির নয়। তবে রঘুবর বললে কী হবে- পর্যবেক্ষক মহল এ হারকে বিজেপির হার হিসেবেই দেখছে।

নির্বাচন কমিশন গতকাল ফল প্রকাশের পর দেখা যায়, কংগ্রেস ও স্থানীয় দল ঝাড়খন্ড মুক্তি মোর্চা জোট ৪৬ আসন পেয়েছে। বিধানসভা ৮১ আসনের মধ্যে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ৪১ আসন। অন্যদিকে বিজেপি পেয়েছে ২৫ আসন। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ ফলকে বেশ তাৎপর্যপূর্ণ হিসেবে ব্যাখ্যা করেছে। কারণ এ নির্বাচনের পাঁচ পর্বের মধ্যে তিনটি পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতজুড়ে নাগরিক সংশোধন আইনের প্রতিবাদের মধ্যে।

মুসলিমবিরোধী হিসেবে তকমা পাওয়া নতুন এ আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ-সংঘর্ষে ইতোমধ্যে ২১ জন নিহত হয়েছেন। এ কারণে ঝাড়খণ্ডের গণরায়কে নরেন্দ্র মোদির গৃহীত নীতির বিরুদ্ধে রায় হিসেবে দেখা হচ্ছে। যদিও গত রবিবার দিল্লির জনসভায় মোদি বলেছেন, নাগরিক সংশোধন আইন নিয়ে মুসলমানদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। প্রায় ১০০ মিনিটের সেই বক্তৃতায় চলমান বিক্ষোভের জন্য তিনি বিরোধীদের দোষারোপ করেন। এর আগে গত মাসে বিজেপি মহারাষ্ট্রেও সরকার গঠনে ব্যর্থ হয়েছে। সেখানে বহুদিনের জোটসঙ্গী শিবসেনা দলছুট হয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করেছে।

এদিকে ঝাড়খণ্ড রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় ছিল। এ ছাড়া চলতি বছর লোকসভা নির্বাচনেও রাজ্যে বিজেপি বিপুল সমর্থন পেয়েছে। সেই হিসাবে বিধানসভা নির্বাচনেও তাদেরই সমর্থন দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বুথফেরত জরিপেই বিজেপির পতনের ইঙ্গিত আঁচ করা গিয়েছিল।

এদিকে ঝাড়খন্ডে নতুন মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ৪৪ বছর বয়সী হেমন্ত সোরেন। মুখ্যমন্ত্রী হলে তিনিই হবেন ঝাড়খণ্ডের সবচেয়ে তরুণ মুখ্যমন্ত্রী। নির্বাচনে জয়ের পর জনগণকে ধন্যবাদ জানান তিনি। এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি হেমন্ত সোরেনের জয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক টুইটে মোদি সোরেনের জন্য শুভকামনা ব্যক্ত করেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত