শনিবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে ষড়যন্ত্রের পথে যাবেন না: ফখরুলকে কাদের

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

কারাবন্দী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চলমান আন্দোলন ব্যর্থ হলে বিএনপি মহাসচিবকে ষড়যন্ত্রের পথে না হাটার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সেতুভবনে কোরিয়ান এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের সেতু কর্তৃপক্ষের সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির আন্দোলন যদি শান্তিপূর্ণ হয়ে তাহলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু আন্দোলনের নামে সহিংসতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।’

বিএনপির আন্দোলনকে সরকার ভয় পায় না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেবকে বলবো, নিজেরা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে ষড়যন্ত্রের পথে যাবেন না-এটাই আপনাদের কাছে আশা করি। এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে বিশৃঙ্খলা হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও হুশিয়ার করেন কাদের।

আওয়ামী লীগ রংপুর-৩ আসন জাপাকে ছেড়ে দেবে কিনা সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, রংপুরের আসনটি আসলে জোটের নিয়ম অনুযায়ী জাপার ছিল, এরশাদ সাহেবের আসন। জোটগত সিট বন্টনে এটা জাপার ছিল। এখন জাপা সংসদে বিরোধীদলের আসনে। এখন তারা আলাদাভাবে নির্বাচনে আসলে আসতে পারে, সেটা তাদের ব্যাপার। আর যদি জোটগতভাবে আমাদের কাছে আসনটি চান, তখন আমরা বিবেচনা করবো। এই মুহূর্তে আমাদের প্রার্থী আছে। যতক্ষণ পর্যন্ত আলোচনা না হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। তারাও কোনো আবেদন করেননি। তাই এই ব্যপারে কিছু বলা যাচ্ছে না।

আসামের এনআরসি বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা ভারত সরকারে কাছে যখন তাদের মন্তব্য জানতে চাই, তখন ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় বলে গেছেন। ওখান থেকে আমরা যেটা পেলাম, এ নিয়ে বাংলাদেশের উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। তবে, আমরা পরিস্থিতি অবজার্ভ করছি। বিচ্ছিন্নভাবে ভারতের কে কী বক্তব্য দিল সেটা আমাদের কাছে বিবেচ্য নয়। ভারত সরকার আমাদের কী বলেছে সেটাই বিবেচ্য বিষয়।

মহাসড়কে টোল আদায় বাড়তি ভোগান্তির কারণ হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, আগে যেতেন চার ঘণ্টায়। এখন যাচ্ছেন তিন ঘণ্টায়, সময় বাঁচবে এখানে লসের কোনো কারণ নেই। আর সমঝোতা স্মারক সই হলো। এটা চুক্তি পর্যন্ত গড়াতে অনেক সময় নেবে। এখনও টোলের বিষয়টি নির্ধারণই হয়নি। কাজেই এটা ডাবল কী ট্রিপল হবে। টোল নির্ধারণের প্রাথমিক কোনো আলাপ আলোচনা পর্যন্ত হয়নি।

টোল নিয়ে বিএনপির নেতাদের অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, মহাসড়ক করার কোনো অভিজ্ঞতা তো বিএনপির নেই। যখন ক্ষমতায় ছিল তখন চারলেনের কোনো রাস্তাই ছিল না। পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল এসব তারা স্বপ্নেও দেখেনি। এদেশে সড়ক অবকাঠোমোর যে উন্নয়ন হয়েছে, এসবের বিষয় তাদের কোনো অভিজ্ঞতা নেই। অন্য দেশেও টোল আদায় হয় এটা তারা জেনেও না জানার ভান ধরছে।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত