রবিবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

প্রধানমন্ত্রী সত্য কথা বলেননি: ফখরুল

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

রাষ্ট্রের আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর হেফাজতে মৃত্যু নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ‘সত্য কথা’ বলেননি বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (৭ আগস্ট) বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি বিবিসি বাংলার সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘এক শ্রেণির মানুষ হেফাজতে মৃত্যুর বিষয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং এরা সেই মানুষ যারা সারাক্ষণ খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে আমাদের পেছনে লেগেই আছে।’

প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমার কাছে এটা পরিষ্কার যে, এখানে প্রধানমন্ত্রী সত্য কথা বলেননি। কারণ, আমাদের পত্র-পত্রিকা, আমাদের যে মানবাধিকার গ্রুপগুলো রয়েছে এবং তাদের যে রিপোর্ট আমরা পেয়েছি, এমনকি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, হিউম্যান রাইটস ওয়াচের রিপোর্ট থেকে আমরা দেখেছি যে, প্রতি বছর জুডিশিয়াল কাস্টডিতে মৃত্যু হচ্ছে। বিশেষ করে গত বছর চারশ’ ৩৫ জনের মতো জুডিশিয়াল কাস্টডিতে তথাকথিত বন্দুক যুদ্ধের নামে হত্যা করা হয়েছে। এর আগের বছরও হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘হেফাজতে টর্চার— এটা কমন ব্যাপার। এর আগেও সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। আমাদের অনেক নেতা-কর্মী আছেন, যাদের পায়ে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করা হয়েছে। সুতরাং উনি (প্রধানমন্ত্রী) একেবারে অবলিলায় অস্বীকার করলেন, এটা হয় না। আমার মনে হয়, এটা সঠিক নয় তো বটেই, এটা সত্যের অপলাপ ছাড়া কিছুই নয় এবং বাংলাদেশের যে প্রকৃত চিত্র, সেটা অস্বীকার করা হয়েছে।’

‘বাংলাদেশে আসলে নির্যাতন সরকারিভাবেই চলছে। বিরুদ্ধ মত এবং যারা ভিন্ন মত পোষণ করে, তাদের ওপর অত্যাচার নির্যাতন আরও বেশি করে চালিয়েছে। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী শহীদুল আলমকে গ্রেফতার করে অত্যাচার করা হয়েছে এবং তাকে কাস্টডিতে নেওয়ার পরও তার সঙ্গে নির্মম আচরণ করা হয়েছে’— বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ডেঙ্গু ইস্যু

ডেঙ্গু মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে দাবি করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘ডেঙ্গুকে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা, মেয়ররা প্রথম দিকে কোনো গরুত্বই দেননি এবং নাকোচ করে দিয়েছেন যে, এটা গুজব। এখন দেখা যাচ্ছে এটি সর্বগ্রাসি রূপ নিয়েছে। শুধু ঢাকাতে নয়, সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। একটা জেলাও বাদ নেই। এটা মহামারি আকারেই ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা সে জন্যেই বলেছিলাম, অবিলম্বে এটিকে আপতকালীন সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে জরুরি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা।’

‘ডেঙ্গু পরিস্থিতির জন্য দুই সিটি করপোরেশন দায়ি নয়, তারা তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবেই পালন করেছে’— প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের পতিক্রিয়ায় মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বর্তমান যে সরকার, জনগণের কাছে তাদের কোনো দায়বদ্ধতাা নেই। কারণ, তারা নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আসেনি, জোর করে ক্ষমতায় এসেছে। সেই জন্য তারা যা খুশি, তাই বলতে পারে।’

একটা দায়িত্বশীল সরকার হিসেবে, জনপ্রতিনিধি হিসেবে তাদের যে দায়িত্ব পালন করার কথা, সেটা তারা পালন করবে না— এটাই স্বাভাবিক। আজকে নতুন নয়, ইতোপুর্বে সব সময়ই প্রধানমন্ত্রী এবং তার মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা অবলিলায় সত্যটা অস্বীকার করেছেন। আর দেশের মানুষ সাফার করেছে।’

Print Friendly, PDF & Email

মতামত