রবিবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

ডেঙ্গু প্রকোপ: ভারত থেকে বিশেষজ্ঞ আসছে রোববার

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আগামী রোববার ভারত থেকে বিশেষজ্ঞ আনা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও চিকিৎসকদের নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সততার কমতি নেই। তবে অভিজ্ঞতার ঘাটতি আছে। যে কারণে ডেঙ্গু নিরাময়ে কলকাতার অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে সেখানকার ডেপুটি মেয়র কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা শিগগিরই বাংলাদেশে আসবেন।

‘এ সময় যত দ্রুত সম্ভব কার্যকর নতুন ওষুধ আনা হবে। কলকাতায় ডেঙ্গু নিয়ে যিনি কাজ করেছেন, তার নাম অনিক ঘোষ। আমি তাকে ফোন করেছিলাম। তিনি বলেছিলেন, আমাকে তাড়াতাড়ি আমন্ত্রণপত্র পাঠান।’

মেয়র আতিক বলেন, আমি আমন্ত্রণপত্র পাঠিয়ে দিয়েছি। আগামী রোববার অনিক ঘোষ বাংলাদেশে আসবেন বলে কথা দিয়েছেন।

ডেঙ্গু নিয়ে কোনো বাণিজ্য না করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে যে মূল্যতালিকা দেয়া হয়েছে, সে অনুযায়ী ফি নেবেন। সব রোগীকে মশারির ভেতর রাখবেন। যে এলাকায় ডেঙ্গু হয়েছে অথবা ডেঙ্গু রোগী থাকেন, খবর দিলে আমরা সেখানে স্প্রে করে দেব। ডেঙ্গু রোগের জন্য অবশ্যই ৩৬৫ দিনই গবেষণা করতে হবে। এটা সিজনাল না, যে কোনো সময় আসতে পারে। তাই, এটি নিয়ে জাতীয়ভাবে একটি গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করা দরকার।’

ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, এমন ভয়ংকর রোগ মোকাবিলায় স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে এগুতে হবে। সেজন্য আপাতত যেসব মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে, তাদের সুকিচিৎসা দিয়ে দ্রুত সুস্থ করে তুলতে হবে। এসময় তিনি পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখতে সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রকল্প গ্রহণের তাগিদ দেন।

ডিএনসিসি মেয়র জানান, তিনি ডেঙ্গু মোকাবিলায় তার এলাকায় বিনামূল্যে মশারি বিতরণ করেছেন। ডেঙ্গু নিয়ে যেন কেউ বাণিজ্য না করে, সে বিষয়েও হাসপাতাল কৃর্তপক্ষ ও চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি ।অন্যদিকে যত দ্রুতসম্ভব ডেঙ্গুর জন্য দায়ী এডিস মশা নিধনে কার্যকর নতুন ওষুধ আনা হবে বলেও জানান তারা।
মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়তে থাকলেও সদ্য শুরু হওয়া আগস্ট মাসে এই সংকট নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে না। আগামী সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ নাগাদ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় ডেঙ্গু পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে।

এসময় ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন দাবি করেন, এরই মধ্যে রাজধানীর ১১টি ওয়ার্ড পুরোপুরি ডেঙ্গুমুক্ত। কোন কার্যক্রম বা উদ্যোগের ফলে এসব ওয়ার্ড ডেঙ্গুমুক্ত হয়েছে— সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সরাসরি কোনো উত্তর না দিয়ে তিনি কেবল ১৭ মে থেকে ২৭ জুলাই পর্যন্ত চালানো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জরিপের উদ্ধৃতি দেন।

সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকলেও বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক আশাবাদ জানান, ডেঙ্গু দ্রুতই নিয়ন্ত্রণে আসবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব তুলে ধরে তিনি জানান, বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত চার হাজারের বেশি রোগী ভর্তি আছেন। সবশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন এক হাজার ৪৭৭ জন।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) বিষয়ক প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির সদস্য ডা. মোস্তফা কামাল মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমও) মহাসচিব ইকবাল আর্সলান ও সংশ্লিষ্ট কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত