শনিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

ডেমু ট্রেন আর নয়: প্রধানমন্ত্রী

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট (ডেমু) ট্রেন কিনতে নিষেধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘এর আগে কেনা ডেমু ট্রেনগুলো যেহেতেু যাত্রীদের উপকারে আসেনি এবং অনেকগুলো নষ্ট হয়ে আছে। তাই নতুন করে এই ট্রেন কেনা হবে না।’

বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক এবং ঢাকার মধ্যে শাটল ট্রেন চালুর জন্য ডেমু সংগ্রহ শীর্ষক একটি প্রকল্প উপস্থাপন করা হলে এ প্রেক্ষিতে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির একনেক সভায় তিনি ডেমু ট্রেন না কেনার এ নির্দেশনাসহ আরও বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক পরবর্তী ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনা সচিব জানান, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- প্রকল্পটি সংশোধন করে অন্য কোনো ট্রেন কিনতে হবে। তবে তিনি ঢাকা থেকে কালিয়াকৈর পর্যন্ত ননস্টপ ট্রেন সার্ভিস চালু এবং অন্যান্য রুটে ট্রেনগুলো যাতে স্টেশন ধরে যায় সে ব্যবস্থা করারও নির্দেশ দেন।

কক্সবাজারকে পরিকল্পিতভাবে সাজাতে একটি মাস্টারপ্ল্যান তৈরির জন্য কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া আলাদাভাবে জেলা প্রশাসনকে আরও একটি মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগে মাস্টারপ্ল্যান হবে তারপরই উন্নয়ন প্রকল্প নিতে হবে। সেসব প্রকল্পের মানসম্মত বাস্তবায়ন এবং যেখানে-সেখানে বিল্ডিং তৈরি করা যাবে না। প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে কক্সবাজারকে রক্ষা করতে ঝাউবন সৃজনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’

কোরবানি ঈদে গরুসহ অন্যান্য পশুর চামড়া সংগ্রহ যাতে সঠিকভাবে করা হয় সেজন্য কসাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ারও নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

পরিকল্পনা সচিব আরও জানান, ‘কালিয়াকৈরে স্থাপিতব্য বঙ্গবঙ্গু হাইটেক পার্কে খেলাধুলা, বিনোদন এবং শপিংমল তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া প্রত্যেক উপজেলায় একটি কওে মিনি স্টেডিয়াম তৈরি করতে বলেছেন। সেসব স্টেডিয়াম কোন স্কুল, কলেজ বা মাদ্রাসার মাঠে নয়, আলাদা স্থানে, প্রয়োজনে উপজেলার বাইরে কোন স্থানে স্টেডিয়ামগুলো নির্মাণ করতে হবে। এসব স্টেয়িামের একদিকে গ্যালারি তৈরি করতে হবে। বাকি তিন দিক খোলা রাখতে হবে। যাতে মাঠের ভেতর কি হচ্ছে তা সাধারণ মানুষ দেখতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা উন্নয়ন চাই, তবে তা যেন ভালো কাজ হয়। ‘নির্বাচিত ছয়টি উপজেলায় স্টেডিয়াম নির্মাণ’ শীর্ষক একটি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হলে সে প্রেক্ষিতে তিনি এ সব নির্দেশনা দেন বলে জানান সচিব।

সূত্র জানায়, ‘বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্কে এবং ঢাকার মধ্যে শাটল ট্রেন চালুর লক্ষ্যে ডেমু সংগ্রহ’ নামের প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছিল ৪১৫ কোটি ৭১ লাখ টাকা। এ প্রকল্পের আওতায় ৬ সেট ব্রডগেজ ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট (ডেমু) সংগ্রহের কথা ছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী প্রকল্পটি অনুমোদন না দিয়ে অন্য ট্রেন কেনার বিষয়টি যুক্ত করে নতুন করে প্রকল্প তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত