রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

চেষ্টা করব ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন যেন না হয়: অ্যাটর্নি জেনারেল

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ফেনীর সোনাগাজী থানার প্রত্যাহার হওয়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের জামিন যেন না হয় সে জন্য রাষ্ট্রপক্ষ শক্ত হাতে বিরোধিতা করবে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) অ্যাটর্নি জেনারেল তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান।

মাহবুবে আলম বলেন, ‘আমার অফিসের আইনজীবী যারা আছেন, তারা প্রস্তুত। ওসি মোয়াজ্জেমের জামিনের বিষয়টি শক্তভাবে বিরোধিতা করা হবে।’

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘নুসরাত হত্যা মামলায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট হয়েছে। এটি গতকাল বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম প্রকাশ করেছে। একজন পুলিশ অফিসার নুসরাতের জবানবন্দির ভিডিওধারণ ও প্রকাশ করেছে। এটি গর্হিত অপরাধ।’

ঈদের ছুটির পর আগামী ১১ থেকে ১৩ জুন যে কোনো দিন বিচারপতি হাবিবুল গণির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন আবেদনের শুনানি হতে পারে।

সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে দায়ের করা মামলায় সোনাগাজী থানার প্রত্যাহার হওয়া ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন জামিন চেয়ে বুধবার (২৯ মে) হাইকোর্টে আবেদন করেন। তার পক্ষে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি করেন আইনজীবী সালমা সুলতানা।

মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে গত ২৭ মে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসলাম জগলুল হোসেন।

ফেনীর সোনাগাজী মডেল থানার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ জানাতে গত ২৭ মার্চ থানায় যান নুসরাত জাহান রাফি। সেখানে জবানবন্দি দেওয়ার সময় নুসরাতের ভিডিও করেন ওসি মোয়াজ্জেম। পরে তিনি ওই ভিডিও ইউটিউব ও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন। ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন যা করেছেন, তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ।

ওই ঘটনায় ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৬, ২৯ ও ৩১ ধারায় মামলা করা হয়। একইসঙ্গে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার আবেদন জানান এ মামলার বাদী সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

পরে শুনানি নিয়ে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত