বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

‘অনির্বাচিত সরকার’কে গ্রহণ করার মূল্য দিচ্ছে জনগণ: ড. কামাল

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

ধান উৎপাদনের জন্য কৃষককে শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে উল্লেখ করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, একটি ‘অনির্বাচিত সরকারকে’ এভাবে গ্রহণ করায় সব মানুষকে মূল্য দিতে হচ্ছে। গণতন্ত্র ও জবাবদিহিতা না এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছেন। গণতন্ত্রহীনতার মূল্য দিতে হচ্ছে সবাইকে।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। ধানের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে ও বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে গণফোরাম সভাপতি বলেন, ধান উৎপাদনের জন্য কৃষককে এ ধরনের ‘শাস্তি’ ভোগ করতে হবে- স্বাধীন দেশে এটি কল্পনাই করা যায় না। এ ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে কারণ, সরকারের কৃষিনীতি নেই।

সরকার মানুষের দাবিকে অবজ্ঞা করছে উল্লেখ করে ড. কামাল বলেন, কোনো কিছুতেই এ সরকারের দায় নেই। কৃষকের ধান কেনাসহ নাগরিকের ব্যাপারেও সরকারে দায়িত্বহীনতা স্পষ্ট। এজন্য সরকার যেনতেনভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। দেশে যদি এ ধরনের একটি অগণতান্ত্রিক সরকার থাকে তার কাছ থেকে কিছু আশা করতে পারি না। এরা (সরকার) মানুষকে অবজ্ঞা করছে, এরা কী করে বলে যে, তারা পাঁচ বছরের জন্য ক্ষমতা পেয়ে গেছে?

সরকারের বিরুদ্ধে সব শ্রেণী-পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ড. কামাল বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য যে, এমন সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে হচ্ছে, সইতে হচ্ছে। তাই দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একটা নির্বাচিত সরকার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে জাতিকে এগিয়ে নিতে হবে। দেশের মানুষকে অবশ্যই ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

প্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে গণফোরাম সভাপতি বলেন, সরকারে এসব ব্যর্থতাকে সামনে নিয়ে তারা ঐক্যবদ্ধ হবে। গণতন্ত্রের জন্য তারা শক্তি প্রয়োগ করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে। কারণ, গণতন্ত্র ও জবাবদিহি না থাকায় অসাধারণ মূল্য দিতে হচ্ছে আমাদেরকে। তাই আসুন দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করি। এতে একটা জবাবদিহিতামূলক সরকার হবে। অবাধ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে একটি প্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠা করি।

সংবাদ সম্মেলনে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি ড. আবু সাইয়িদ বলেন, সরকার জনবিচ্ছিন্ন। তাদের ওপর কারো আস্থা ও বিশ্বাস নেই।

সংবাদ সম্মেলনে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, এই সরকার কৃষকের প্রতি সহানুভুতিশীল নয়। তারা ঋণ খেলাপি বা শেয়ার বাজার ম্যানিপুলেটকারীদের সাহায্য সহযোগিতায় এগিয়ে এলেও কৃষকের সাহায্যে একেবারেই নীরব।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত