শুক্রবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

এটা গাফিলতি না, হত্যাকাণ্ড: গণপূর্তমন্ত্রী

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

নিউজগার্ডেনবিডডটকম:

রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ড নিয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, এটা গাফিলতি না, হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনার জন্য যেসব আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার তাই নেওয়া হবে।

আজ শুক্রবার সকালে এফ আর টাওয়ারের দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের মন্ত্রী এ কথা বলেন।

বনানীর ফারুক রূপায়ণ (এফ আর) টাওয়ারে গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে আগুন লাগে। সন্ধ্যার দিকে তা নিয়ন্ত্রণে আসে। এর পর ভবনটির বিভিন্ন ফ্লোরে প্রবেশ করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এ সময় একের পর এক লাশ উদ্ধার করা হয়। আজ শুক্রবার সকালেই পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৭৩ জন।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, এফ আর টাওয়ার কী করে ১৮ তলার অনুমোদন নিয়ে ২৩ তলা হয়ে গেল, সে সম্পর্কিত কাগজপত্র রাজউকের রেকর্ডবুকে পাওয়া যায়নি। এ কথা বলেছেন।

আজ সকালে ঘটনাস্থলে এসে গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে রাজউক ১৮ তলা ভবন নির্মাণের অনুমোদন ছিল। ২০০৫ সালে একটি নথিতে দেখা যায়, ভবনটি ২৩ তলা। এই ভবনটি কীভাবে ২৩ তলা হলো তার সমর্থনে কোনো কাগজপত্র রাজউকের রেকর্ডবুকে নেই।
মন্ত্রী মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনের কথা জানান। ত্রুটির জন্য যে বা যারাই অর্থাৎ প্রতিষ্ঠান, মালিক বা সংশ্লিষ্ট লোকজন সবাইকে শাস্তি দেওয়া হবে।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, ক্ষমতা, পদপদবীতে যে যত প্রভাবশালীই হোন না কেন শাস্তি এড়াতে পারবেন না। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট নির্দেশ আছে।
এ ভবনটির আশপাশে যেসব বহুতল ভবন আছে সেগুলোর ব্যাপারেও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে বলে জানান মন্ত্রী। অনুমোদিত অংশের বাইরের ভবন ভাঙার সুযোগ থাকলে ভেঙে ফেলা হবে।

মন্ত্রী বলেন, এ ভবনটির (এফ আর টাওয়ার) আশপাশে যেসব বহুতল ভবন আছে সেগুলোর ব্যাপারেও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। অনুমোদিত অংশের বাইরে ভবন ভাঙার সুযোগ থাকলে ভেঙে ফেলা হবে।

 

Print Friendly, PDF & Email

মতামত