সোমবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

রাহুলের স্লোগানের পাল্টা স্লোগান মোদির

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

নিউজগার্ডেনবিডডটকম:কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে ভারতের লোকসভা নির্বাচন। নিজেদের প্রচারে উঠে পড়ে লেগেছে সব দল। পাঁচ বছর ধরে দায়িত্বে থাকা বিজেপি সরকার তাঁর প্রাথমিক নির্বাচনী স্লোগান নির্ধারণ করেছে। জনগণকে তাঁরা জানাচ্ছে, ‘মোদি আছে তো সব সম্ভব।’

দ্য ওয়ারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি ভারত-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে হামলা চালিয়ে ৪০ জন আধা-সামরিক সেনাকে হত্যার জন্য দায়ী করা জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধানকে সন্ত্রাসী হিসেবে তালিকাভুক্ত করার জাতিসংঘের প্রস্তাব চীনের কারণে পাস না হওয়ায় হতাশ ভারত। নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যদের সবার সমর্থন না পেলে কোনো প্রস্তাব গৃহীত হয় না। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্সের সমর্থনে উত্থাপিত প্রস্তাবটির পক্ষে ভোট দেয়নি চীন। দেশটি উল্লেখ করেছে, উত্থাপিত প্রস্তাবটি গভীর মনোযোগের সঙ্গে বিশ্লেষণের জন্য আরও সময় প্রয়োজন।

চীনকে রাজি করাতে পারেননি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর এই ব্যর্থতা সুযোগ করে দিয়েছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধীকে। সরকারকে ‘দুর্বল’ ও ‘ভীত’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। তবে রাজনীতির মাঠে কথার শেষ হয় না। কংগ্রেস সভাপতির মন্তব্যের জবাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। তিনি রাহুলকে ‘অনিশ্চিত নেতা’ বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, রাহুল গান্ধীর প্রপিতামহ জওহরলাল নেহরু যদি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে চীনের স্থায়ী আসন প্রত্যাখ্যানের মার্কিন প্রস্তাব অস্বীকার না করতেন তাহলে আজ এমনটা হতো না।

এদিকে রাফাল নিয়ে রাহুল গান্ধীর ‘চৌকিদারই চোর’ স্লোগানের পাল্টা জবাবে মোদি বলছেন, ‘শপথ করুন আপনিও চৌকিদার।’ ভারতের গণমাধ্যম আনন্দবাজার অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মোদি এবার প্রচার করছেন, তিনি একা নন। দেশের সকলেই চৌকিদার। নিজেকে এত দিন দেশের চৌকিদার বলে প্রচার করে এসেছেন মোদী।

এমন ভিডিও প্রচার হচ্ছে, যেখানে মোদি নিজেকে যেমন ‘চৌকিদার’ বলে দাবি করেছেন, তেমনই যারা দুর্নীতি, গরিবি, সন্ত্রাস ও সামাজিক অসাম্যের বিরুদ্ধে সরব, তাঁদের প্রত্যেককেই তাঁর মতো ‘চৌকিদার’ হিসেবে তুলে ধরেছেন। ভিডিওতে সরকারের সাফল্যের ফিরিস্তির পাশাপাশি ৩১ মার্চ ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ নামে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান দেখার জন্যও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

তবে এরও পাল্টা জবাব দিয়েছে কংগ্রেস। তাঁরা বলছে, ‘চৌকিদারি’তে ব্যর্থ হয়ে এখন নিজের দায়িত্ব দেশবাসীর ঘাড়ে তুলে দিতে চাইছেন মোদি। রাহুলের অভিযোগ, মোদির ভেতরের অপরাধবোধেই এই নতুন প্রচার। নীরব মোদী, অনিল আম্বানি, বিজয় মাল্যের মতো ঋণখেলাপিদের সঙ্গে মোদির ছবি দিয়ে রাহুলের টুইট, ‘আপনি কি আজ অপরাধবোধে ভুগছেন?’

এদিকে রাজনৈতিক প্রচারে এখন নেহরুর শহর এলাহাবাদে আছেন গান্ধী পরিবারের মেয়ে ও কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। এলাহাবাদ দিয়েই উত্তর প্রদেশের নির্বাচনী প্রচার শুরু করেছেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত