বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

হামলা করলে প্রতিশোধ নেবো, হুঁশিয়ারি ইমরানের

নিউজগার্ডেনবিডিডটকম: 

নিউজগার্ডেনবিডডটকম:  কাশ্মীর হামলা ঘিরে ভারত-পাকিস্তান দু’দেশের মধ্যে চলছে উত্তেজনা। এ নিয়ে একে অপরের হাইকমিশনারকে এরইমধ্যে তলব হয়ে গেছে। এমনকি প্রতিবেশী দেশ দু’টির হাইকমিশনারকে ‘প্রত্যাহারও’ করে ফেলেছে নয়াদিল্লি-ইসলামাবাদ। আর ঠিক এ মুহূর্তের উত্তেজনায় যেনো ঘি ঢাললেন পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বললেন, ভারত যদি হামলা করে, পাকিস্তান এর প্রতিশোধ নেবে।

ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে জঙ্গি হামলার পর মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ বিষয়ে প্রথম মুখ খুললেন পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভিডিও বার্তায় তিনি ভারতকে এভাবেই হুঁশিয়ারি দেন।

এসময় ইমরান খান বলেন, কাশ্মীর হামলার পর পাকিস্তানকে ভারত হামলা করলে, সেটার জবাব দেবো আমরা।

তিনি দাবি করে বলেন, নির্বাচন সামনে বলে পাকিস্তানকে দোষারোপ করছে ভারত। কিন্তু এ ব্যাপারে আমরা সিরিয়াস।

প্রধানমন্ত্রী এও বলেন, এই হামলার সঙ্গে পাকিস্তানের জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণ করতে পারলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া এটা ভাবার কোনো কারণ নেই যে, পাকিস্তান প্রতিশোধ নিতে পারবে না। আমরা কিন্তু তাতে সক্ষম।

১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে রাজ্যটির পুলওয়ামা জেলার অবন্তিপুর এলাকার গোরিপুরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় দেশটির বিশেষায়িত বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪৪ সদস্য নিহত হন। এ ঘটনার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানি জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মুহম্মদ।

এ নিয়ে পাকিস্তানকে দোষারোপ করছে ভারত। হামলার পর দিন ভারতে তাদের হাইকমিশনারকে ডেকে এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে নয়াদিল্লি। এদিকে, পাকিস্তান বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে। তারাও ওইদিনই পাকিস্তানে ভারতের হাইকমিশনারকে ডাকে ইসলামাবাদে। পরে দু’দেশই তাদের হাইকমিশনারকে নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়।

ভারত সরকারের সূত্রের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ভারত-পাকিস্তানের দুই হাইকমিশনারের মাধ্যমে নয়াদিল্লি ইসলামাবাদকে বলেছে, পাকিস্তানকে জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। সেইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রও পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনার জেরে পাকিস্তানেকে বাণিজ্যিকভাবে বিপদে ফেলার চেষ্টা করছে ভারত। এর অংশ হিসেবে ইতোমধ্যেই পাকিস্তান থেকে দেশে আসা যেকোনো পণ্যের ওপর ২০০ শতাংশ শুল্ক বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত